টাইম মেশিন ইতিহাসের খন্ডচিত্র-দিপালী সিনহা অতনু বন্দ্যোপাধ্যায় শরৎ ২০১৬

timemachinekhandochitro03 (Medium)

পাহাড়ি মেয়ে দীপালি সিনহা

অতনু বন্দ্যোপাধ্যায়

মাউন্টেনিয়ার হিসেবে মেয়েদের কৃতিত্বের কথা বললেই মনে পড়ে ‘বাচেন্দ্রী পাল’ এর কথা। ১৯৮৪ সামে উত্তরাখন্ড নিবাসী এই মেয়ে অর্জন করেছিল প্রথম মহিলা এভারেস্ট বিজয়িনীর  শিরোপা। কিন্তু এক বাঙালী মেয়ে দীপালী সিনহার নাম অনেকেই ভুলে গেছে, যে আরো কুড়ি বছর আগেই প্রথম মহিলা মাউন্টেনিয়ার হিসেবে ১৯৬০ সালের ভারতীয় রক্ষণশীল সমাজকে চমকে দিয়েছিলেন। শহর কোলকাতার মধ্যবিত্ত বাড়ির এক মেয়ে বাড়ির কোন অভিভাবক ছাড়াই হিমালয় পর্বতারোহণে যাবে, এই ব্যাপারটাই ছিল বাঙালি রক্ষণশীল সমাজের কাছে বড় একটা বিস্ময় এবং নানা বাধার উদ্রেককারী।

timemachinekhandochitro01 (Medium)

কিন্তু সারা পরিবার ও সমাজের বিপরীতে গিয়ে বাবা ডাঃ দেবেন্দ্র চন্দ্র সিনহা মেয়ের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন।  সব বাধা পেরিয়ে হিমালয়ান মাউন্টেনিয়ারিং এর এক কোর্স এর সূত্রে যেদিন প্রথম হিমালয়ের বুকে পা রেখেছিলেন দীপালি, বুঝতে পেরেছিলেন, এই হল তাঁর জীবনের গন্তব্য। তীব্র ঠান্ডা, তাঁবু-বাস, আর কঠিন পরিশ্রমের এই পথ চলাই  তাকে আর পেছনে তাকাতে দেয়নি। কোন বাধা আর মানেননি দীপালি। তাঁর এই হার না মানা জেদই তাঁকে কাছাকাছি এনে দিয়েছিল এডমন্ড হিলারি, তেনজিং নোরগে, ক্রিস বনিংটন… আরো এমন অনেক  মাউন্টেনারিং জগতের সব নক্ষত্রদের। ১৯৬৭ সালে নন্দা ঘাঁটি পর্বতশৃঙ্গ আরোহণ থেকে শুরু করে জীবনের বেশিরভাগ সময়টাই উনি কাটিয়ে দিয়েছেন মেয়েদের উৎসাহ দিয়ে ও সংগঠিত করে পর্বতের আহ্বানে সাড়া দিতে।

timemachinekhandochitro02 (Medium)

গুরুস্থানীয় বৃটিশ পর্বতারোহী ক্রিস বনিংটনের সঙ্গে

জয়ঢাকের টাইম মেশিন লাইব্রেরি