ধাঁধা মজা রহস্য

জানো কী

এইগুলো জোগাড় হয়েছে একটা ফেসবুকের পোস্ট থেকে

১। চোখ খোলা রেখে হাঁচি দেয়া যায় না আর হাঁচি দেবার সময় সেকেন্ডের ভগ্নাংশের জন্য হৃৎপিন্ড থেমে যায়।

২। ফুটবল খেলার সময় একেকজন খেলোয়াড় সাধারণত নব্বই মিনিটের প্রতি খেলায় ৭ মাইল অবধি দৌড়োয়।

৩। প্রজাপতির চোখের সংখ্যা ১২ হাজার!

৪। যখন আমরা কোনো কিছু ছুঁই, তখন ছোঁবার অনুভূতিটা ঘণ্টায় ১২৪ মাইল বেগে মস্তিষ্কে পৌঁছায়।

৫। ডান পাশের ফুসফুস বাঁপাশের চেয়ে বেশি বাতাস গ্রহণ করে।

৬। শরীরের পেছন দিক দিয়েও নিঃশ্বাস নিতে পারে কচ্ছপ।

৭। উইন্ডোজ এর আবিষ্কর্তা, কিন্তু মজার ব্যাপার হল, বিল গেটসের বাড়ির ডিজাইন কিন্তু করা হয়েছে উইন্ডোজ ব্যবহার না করা ম্যাকিনটস কম্পিউটার ব্যবহার করে।

৮। পোকাখেকো বাজপাখির দৃষ্টিশক্তি খুবই প্রখর। আধামাইল দূর থেকেও একটা ফড়িংকে ঠিক ঠিক শনাক্ত করতে পারে।

৯।প্রাচীনকালে রোমান সৈন্যরা এক ধরনের বিশেষ পোশাক পরত। এখন সেটা সাহেবদের দেশে মেয়েদের পোশাক। পোশাকটার নাম স্কার্ট।

১০। একটা বোয়িং -৪০০ বিমানে৪৭৪  লাখ যন্ত্রাংশ আছে।

১১। বড় আকারের ক্যাঙারু এক লাফে পেরোতে পারে ৩০ ফুট।

১২। পাখি জগতে প্যাঁচাই কেবল চোখের উপরের পাতা পিটপিট করে। বাকি সব পাখি পিটপিট করে চোখের নিচের পাতা।

১৩। মধু খুব দ্রুত হজম হয়। কারণ আগেই একবার মৌমাছিরা হজম করে রাখে।

১৪। বিপদে পড়লে এস ও এস বা আপদকালীন বার্তা পাঠাবার নিয়ম আছে। প্রথম এস ও এস বার্তা পাঠিয়েছিল টাইটানিক।

১৫। প্রত্যেক মহাদেশেই রোম নামের শহর আছে, কেবল অ্যান্টার্কটিকা ছাড়া।

১৬। আঙুলের মতো একজন মানুষের ঠোঁটের ছাপও অন্য মানুষের চেয়ে সম্পূর্ণ আলাদা।

১৭। মিকি মাউসের স্রষ্টা ওয়াল্ট ডিজনি ইঁদুরকে মারাত্মক ভয় পেতেন।

১৮। বিড়ালের প্রতিটি কানে আছে ৩২টি করে পেশি।

১৯। সুস্থ দেহে রক্তের গতিবেগ ঘণ্টায় সাত মাইল।

২০। চোখের একটা পলক ফেলতে সময় লাগে শূন্য দশমিক চার সেকেন্ড।

২১। শিশু অবস্থায় কতখানি পথ হামা দিয়েছ জানো? প্রায় দেড় শ কিলোমিটার পথের সমান।

আগের সমস্ত পর্বের লিংক এই পাতায়