নাম কেন জয়ঢাক– জয়ঢাক শীত ২০০১

ইশকুলে পড়তাম যখন আমাদের প্রিয় খবরের কাগজ ছিল দৈনিক জয়ঢাক। সে কাগজ দেখতাম শুকতারার পাতায়, আমাদের হিরো বাঁটুলের ব্রেকফাস্ট টেবিলে। তারপর আমি, বাসব আর হারু, তিন বন্ধু মিলে একদিন শুকতারা দফতরে চিঠি পাঠালাম, ‘ডাকযোগে একটি দৈনিক জয়ঢাক পাঠাইবেন। বাবা টাকা দিবে। আমার বাবা ছিলেন না, কিন্তু হারু বাসবের বাবা ছিলেন। ভরসা ছিল কাগজ এলে ব্যবস্থা একটা হয়ে যাবে কোনো একজন বাবার দৌলতে।

সে ‘ভাঙ্কার চিঠি’ বোধায় শুকতারার দফতরে পৌঁছোয়নি। কোনো জবাব না পেয়ে বেজায় রেগে গিয়ে তিন বন্ধু মিলে ঠিক করেছিলাম যেই চাকরি পাব ওমনি আমরা নিজেরাই একটা জয়ঢাক বের করব। করবই। স্বপ্নটা সফল করতে এরপর দুটো দশক গড়িয়ে গিয়েছিল। প্রথম ইস্যুটা হাতে করে শ্রী নারায়ণ দেবনাথকে প্রণাম করতে গিয়েছিল হারু আর বাসব। আশীর্বাদ পেয়েছিল। হয়ত আঠারো বছর আগের কথা তাঁরও আর মনে নেই। সে কথা সকলকে চাউরও করা যায়নি। জুকেরবার্গ তো তখন ইশকুলে পড়ে। ফেসবুক  তখন কোথায়? প্রথম সংখ্যার শেষ পাতায় পূজনীয় মানুষটিকে উদ্দেশ্য করে এই চিঠিটা লিখেছিল তিন একলব্য।

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s