পুজো স্পেশাল মুর্শিদাবাদ ফুর্তি-আবাদ পুষ্পেন মণ্ডল শরৎ ২০১৮

মুর্শিদাবাদ!! ফুর্তি আবাদ!!

পুষ্পেন মণ্ডল

একদল নবীন ও প্রবীণ সাহিত্যিক, সঙ্গে সাহিত্যপ্রেমী কিছু বন্ধু আর খোলা আকাশের নিচে সাহিত্যসভা। অনেকেই নাক কুঁচকে বলবেন, সাহিত্যসভা তো হয় বন্ধ ঘরের মধ্যে, গুরুগম্ভীর ভাষণ আর বড় বড় ভারী ভারী কথা গিলিয়ে। আজ্ঞে, আমাদের মতে তা ভষ্মে ঘি ঢালা ছাড়া আর কিছু নয়। আসল কাজের কাজ সেখানে হয় লবডঙ্কা!

বদ্ধ ঘরের মধ্যে সাহিত্যের জন্ম হয় না। কবিতা, ছড়া, গল্প, মন ছুঁয়ে যাওয়া প্রবন্ধ, এরা ভেসে বেড়ায় খোলা আকাশের নিচে, চিরহরিৎ গাছেদের ভিড়ে, পাখিদের কলরবের মধ্যে, নদীর পাড়ে, পাহাড়ের খাঁজে কিম্বা ভাঙা পোড়ো কোনো ঐতিহাসিক মর্মরের গায়ে। দু’চোখ ভরে দেখতে হয় তাদের, ঘ্রাণ নিতে হয় প্রাণ ভরে। তারপর কল্পনার সঙ্গে মিশে তারা ছোট্ট শিশুর মত খিলখিলে হাসি অথবা কানফাটা কান্না নিয়ে হাত-পা ছুঁড়ে জন্ম নেয় সাদা কাগজে। বিভূতিভূষণ থেকে তারাশঙ্কর, জীবনানন্দ থেকে সুনীল-শক্তি, এমন উদাহরণ হাজারো আছে।  

গতবছর শীতকালে আমরা সবাই সাহিত্য আসর জমাতে পাড়ি দিয়েছিলাম মুর্শিদাবাদে। সঙ্গে হল দেদার আড্ডা, হুল্লোড়, মজা, কবিতা, গল্প। এই উপলক্ষে আমরা আগে থেকেই একটা গল্প প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিলাম। তার বিষয়ও ছিল মুর্শিদাবাদ। উদ্দেশ্য ছিল ওই ঐতিহাসিক ভূমির সঙ্গে লিখিয়েদের একটা অনুভূতির বাঁধন গড়ে তোলা।

বাছাই করা গল্পগুলি পড়া হল মুর্শিদাবাদের কনকনে ঠাণ্ডায় জবুথুবু চাদর মুড়ে। তারপর তারা প্রবীণ বিজ্ঞানলেখক কমলবিকাশবাবুর হাত থেকে সার্টিফিকেট আর হাতে হাতে নগদ পুরস্কার পেয়ে খুশি হল খুব! এবার সেই তিনটি অসাধারণ গল্প প্রকাশ করা হল এই ‘জয়ঢাক’ পুজো সংখ্যায়।  

এছাড়াও বেশ কিছু অসাধারণ স্মৃতি রয়ে গেল আমাদের হৃদয়ে চিরকালের জন্য। যেমন পরের দিন ভোরে উঠে তন্ময়, নূরজামান, সপ্তর্ষিরা জোগাড় করে আনল সদ্য গাছ থেকে পাড়া খেজুরের রস। আহা! সে কী স্বাদ!

খাওয়াদাওয়াতে কোন কার্পণ্য ছিল না আমাদের। আর যেটার কথা না বললে মুর্শিদাবাদ ভ্রমণ অসম্পূর্ণ থেকে যাবে সেটা হল ঝুড়ির দই। কঞ্চির তৈরি ছোট ছোট ঝুড়িতে যে অমন সুন্দর দই বসানো যায়, আর তার অত সুন্দর স্বাদ! সেটা এবার তাপসদাদের পাল্লায় পড়ে নবাবের শহরে না গিয়ে পড়লে জানাই হত না।

ফুটি মসজিদে তো অনেকেই গেছেন। কিন্তু ঠিক গোধূলি লগ্নে গেছেন কি কোন দিন? যদি না গিয়ে থাকেন তাহলে আপনি জানতে পারবেন না, যে সেখানে এখনও নবাবী আমলের ভূতেরা দিব্যি ঘাঁটি গেড়ে বসে আছে। হ্যাঁ, যারা ছিলেন আমাদের সাথে, তাঁদের জিজ্ঞেস করলেই প্রমাণ পাবেন। ভাবলেও গায়ের লোমগুলি খাড়া হয়ে উঠছে এখনও!  

মোতিঝিলের অসাধারণ আলোকসজ্জার মধ্যে “লাইট এন্ড সাউন্ড শো” দেখে ফিরে গঙ্গার তীর বরাবর মাঝরাত্রিকালীন গা ছমছমে হন্টন। মুর্শিদাবাদের বাদশাহি মিউজিয়াম। আর লম্বা একটা মজাদার হৈহৈ সম্বলিত অন্তহীন বাসযাত্রা। যেখানে সবাই এত গুণীজন! কৃষ্ণেন্দুদা হয়ত নূরজামানকে নিয়ে একটা ঠাট্টা করল, সঙ্গে সঙ্গে দেবজ্যোতিদা সেই কথাটাকে একটু সাজিয়ে ছড়া বানিয়ে দিল। তারপর সুর দিল তাপসদা আর মুহূর্তের মধ্যে সপ্তর্ষি-তন্ময় জুটি যা পেল হাতের কাছে সেই নিয়ে বাজনা বাজিয়ে গান গেয়ে উঠল। সে সব অসাধারণ স্মৃতি চিরকালের জন্য রয়ে গেল আমাদের মনের মণিকোঠায়। 

সবাইকে জানিয়ে রাখি এবছরেও যাচ্ছি আমরা হৈহৈ করে সাহিত্য আসর জমাতে। এবারের গন্তব্য বাঁকুড়া, বিষ্ণুপুর আর শুশুনিয়া। দিনক্ষণ ঠিক হয়ে গেছে। ৮ আর ৯ই ডিসেম্বর, ২০১৮, শনি আর রবিবার। ইচ্ছা করলে আপনিও যোগ দিতে পারেন আমাদের সাথে। চাইলে সাহিত্য মনস্ক আত্মীয় বা বন্ধুবান্ধবকে সঙ্গে নেওয়া যাবে। ইচ্ছুক ব্যক্তিরা এই মর্মে একটি আবেদনপত্র পাঠাবেন এই ইমেল এড্রেসে – sahityavramancareofjoydhak@outlook.com  

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে চাইলে ‘বাঁকুড়া সাহিত্য ভ্রমণে’র জন্য লিখে ফেলুন নিজের সেরা লেখাটা। বিষয় – “বাঁকুড়া ও বিষ্ণুপুর”। মানে এই পটভূমিতে গল্প, প্রবন্ধ বা ছড়া। যেটা আপনার খুশি। প্রতিযোগিতার জন্য গল্পের শব্দ সংখ্যা ২৫০০, প্রবন্ধ ১৫০০ শব্দ ও কবিতা বা ছড়া ১৫ লাইন সর্বাধিক।

শর্ত –

১. লেখাটি অবশ্যই কিশোরপাঠ্য, অপ্রকাশিত ও মৌলিক হতে হবে।

২. এই ইমেলে sahityavramancareofjoydhak@outlook.com লেখা জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ১৫ই নভেম্বর, ২০১৮।

৩. লেখা জমা দিতে হবে বাংলা ইউনিকোডে বা ফটোকপি বা পিডিএফ বা জেপিজি ফরম্যাটে।

৪. নির্বাচনের ক্ষেত্রে নির্বাচকদের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে।

নির্বাচিত লেখা গুলি পুরস্কার পাবে আর প্রকাশিত হবে ‘জয়ঢাকে’র পরের পুজো সংখ্যায়।       

Advertisements

One Response to পুজো স্পেশাল মুর্শিদাবাদ ফুর্তি-আবাদ পুষ্পেন মণ্ডল শরৎ ২০১৮

  1. Sudeep says:

    বাহ্

    Like

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s