ভূতের আড্ডা-দেশবিদেশের ভূতেরা-কবন্ধ ও নাইটস অব এলবার্গ সংহিতা শীত ২০১৬

bhuteraddadeshbidesherস্কন্ধকাটা মানে যে ভূতের মুণ্ডু নেই। যদিও কাঁধ কাটা, তবে কাঁধ আছে, মুণ্ডু নেই। এমন ভূত নাকি তবেই হয় যদি কোনো মানুষের মৃত্যু হয় তার মাথা কাটা পড়ার ফলে। মানে যে সময়ে তরোয়াল নিয়ে যুদ্ধ হতো আর রণক্ষেত্রে অনেক সৈন্য মারা যেত তরোয়ালের কোপে মুণ্ডু হারিয়ে তারা সব্বাই মরে হয়তো স্কন্ধকাটা ভূত হতো! মানে তখন অন্য ভূতেদের তুলনায় স্কন্ধকাটারা দলে বেশ ভারি ছিল বলেই মনে হয়। তাই সেই সময়ে হয়ত অনেক স্কন্ধকাটা দেখতে পাওয়া যেত, হয়ত। একালে নাকি মাথা কাটা যাওয়া ভূত হয় কেবলমাত্র রেলে কাটা পড়ে মরলে! সে ঘটনা বেশ বিরল। তাই স্কন্ধকাটাদের সংখ্যা বোধ হয় আর সব ভূতেদের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়েনি। কে জানে?… দশ বছরে একবার করে কি ভূত গণনা হয়? একমাত্র ভূতেরাই সে কথা জানে।

তরোয়াল নিয়ে যুদ্ধের কথায় মনে পড়ল অন্য একদল ভূতের কথা। তাদেরকে ডাকা হয় নাইটস্‌ অফ এলবার্গ বলে। লোককথা বলে যে ১৩৮৯ সালে বারো জন নাইট-এর একটা দল এলবার্গের যুদ্ধে মারা পড়ে। সেই থেকে তাদের ভূতেরা নাকি এলবার্গের মাঠেই ঘুমোচ্ছে। আসলে তারা অপেক্ষা করছিল আবার যদি কোনো দিন সেই মাঠে যুদ্ধ হয় তার জন্য। অপেক্ষা করতে করতে তারা ঘুমিয়ে পড়েছে। এলবার্গের মাঠে তারপর আর যুদ্ধ হয়েছে কিনা জানি না। কারণ মৃত নাইটের ভূতেরা অপেক্ষা করছে মূলত স্বর্গে যাওয়ার। যদি এলবার্গের মাঠে এমন একটা যুদ্ধ হয় যে তাতে এই নাইটদের ভূতেরা অংশ নিলে তারা জন্মভূমি সুইডেনের পক্ষে যুদ্ধ করতে পারবে আর যুদ্ধে জয়ী হবে। যুদ্ধে বিজয়ী হয়ে জন্মভূমির মানরক্ষা করতে পারলে তবেই তাদের স্বর্গ জুটবে। তার মানে এই নাইটদের ভূতেরা পরে এলবার্গের যুদ্ধে অংশ নিলেও তারা হয়তো সুইডেনকে জয়ী করতে পারেনি। কিংবা উপযুক্ত ঘোড়ার অভাবে তারা বোধ হয় যুদ্ধে অংশই নিতে পারেনি। কারণ যুদ্ধে মারা যাওয়ার পর তাদের ঘোড়াগুলো যদি বেঁচে ছিল তো তাহলে সেগুলো অন্য মালিকের হাতে পড়েছিল। আর ঘোড়াগুলো মরে গিয়ে ঘোড়ার ভূত যদি হয়েও থাকে, তবু যে মানুষের যে ভূত সেই ভূত সেই মানুষের যে ঘোড়া ছিল, সেই ঘোড়ার ভূতের পিঠে সওয়ার হতে পারে কিনা সে বিষয়েও কিছু জানা যায় না! যা হোক , বারো জন নাইটের ভূত তাই এখনও নাকি ঘুমিয়ে আছে এলবার্গের মাঠে।

জয়ঢাকি ভূতসাইক্লোপিডিয়া এই লিংকে

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s